৬ ভাদ্র ১৪২৬, বুধবার ২১ আগস্ট ২০১৯ , ১০:৩১ অপরাহ্ণ

কোটা আন্দোলনঃ নেতৃত্বদানকারী ২৮৮ জনের সব তথ্য গোয়েন্দাদের হাতে

বিডিএসনিউজ২৪.কম

প্রকাশিত : ০৬:৫৫ পিএম, ১৫ জুলাই ২০১৮ রবিবার | আপডেট: ০৭:৫১ পিএম, ১৫ জুলাই ২০১৮ রবিবার

কোটা আন্দোলনঃ নেতৃত্বদানকারী ২৮৮ জনের সব তথ্য গোয়েন্দাদের হাতে

কোটা আন্দোলনঃ নেতৃত্বদানকারী ২৮৮ জনের সব তথ্য গোয়েন্দাদের হাতে

কোটা আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত নেতৃত্বদানকারী সকল শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীদের তথ্য সংগ্রহ করেছে গোয়েন্দা সংস্থা। তাদের ফোন নাম্বার, হোয়াটস্যাপ, ভাইবার, ইমেইল, ফেসবুক আইডির যাবতীয় তথ্য সিঙ্গাপুরের একটি গোয়েন্দা সংস্থাকে দেয়া হয়েছে তাদের সকল তথ্য খুঁজে বের করার জন্য। ইতিমধ্যে দেশীয় গোয়েন্দা সংস্থা আন্দোলনে কারা অর্থায়ন করেছে এই বিষয়েও চাঞ্চল্যকর তথ্যও পেয়েছে।

 

সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থার সংস্কারের দাবিতে গড়ে ওঠা এই আন্দোলনের সাথে সরাসরি জড়িত ২৮৮ জনের উপর নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে ছাত্র শিবির, ছাত্রদল, ছাত্র ফেডারেশন , ছাত্রইউনিয়ন এর ৫২ জন ছাত্রনেতা, দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলের ১৩৮ জন ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, ব্লগার, সাংবাদিকসহ সুশীল সমাজের রয়েছেন ৬৬ জন আর বাকি ৩২ জন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা ।

এর মধ্যে মধ্যপ্রাচ্য, মালয়েশিয়া, যুক্তরাজ্য ও আমেরিকার বেশ কয়েকজন প্রবাসীও রয়েছেন। কোটা আন্দোলনে গ্রেপ্তারকৃত রাশেদ, মামুন, সুহেল জিজ্ঞাসাবাদে উল্লেখিত ব্যক্তিবর্গের বিষয়ে বিভিন্ন রকম তথ্য দিয়েছেন। তাদেরকে আরো জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

 

গত ৬ এপ্রিল থেকে ১০ জুলাই পর্যন্ত আন্দোলনে জড়িত এসব ব্যক্তির ব্যাংক একাউন্ট ও বিকাশ নম্বরে অন্তত সাড়ে ১৮ কোটি টাকা লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে গোয়েন্দা অনুসন্ধানে। এছাড়াও অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ব্যবহারসহ আরো একাধিক মাধ্যমে টাকা লেনদেনের তথ্য এবং জামাত নিয়ন্ত্রনাধীন কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সাথে লেনদেনের তথ্য আছে গোয়েন্দা সংস্থার কাছে।

 

ইতোমধ্যে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার (আইএসপি) এর কাছ থেকে পাওয়া তথ্য-উপাত্তসহ আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারী সকল শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীদের ফোন নাম্বার, ভাইবার, ইমেইল, হোয়াটস্যাপ, কল রেকর্ডসহ যাবতীয় তথ্যাদি হস্তান্তর করা হয়েছে সিঙ্গাপুরের গোয়েন্দা সংস্থা এসআইডিকে ( সিকিউরিটি এন্ড ইন্টিলিজেন্স ডিভিশন)।

 

এসআইডি ইতিমধ্য বেশকিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে দেশীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে। গোয়েন্দা সংস্থা এ সব তথ্যর ভিত্তিতে বেশকিছু ব্যাক্তিকে কড়া নজরদারিতে রেখেছে বলে জানিয়েছেন গোয়েন্দা বিভাগের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা। গোয়েন্দা সংস্থা এইসব তালিকাভুক্ত ব্যক্তিবর্গের পরিবারের সদস্যদেরও নজরদারিতে রেখেছে।