৩ কার্তিক ১৪২৬, শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ , ৩:১৮ পূর্বাহ্ণ

ছাত্রদল-শিবিরকে জঙ্গি ঘোষণা, সন্ত্রাস নিয়ে বহিঃবিশ্বের উদ্বেগ

বিডিএসনিউজ২৪.কম

প্রকাশিত : ০৫:৪৮ পিএম, ৬ আগস্ট ২০১৮ সোমবার | আপডেট: ০৫:৫০ পিএম, ৬ আগস্ট ২০১৮ সোমবার

ছাত্রদল-শিবিরকে জঙ্গি ঘোষণা, সন্ত্রাস নিয়ে বহিঃবিশ্বের উদ্বেগ

ছাত্রদল-শিবিরকে জঙ্গি ঘোষণা, সন্ত্রাস নিয়ে বহিঃবিশ্বের উদ্বেগ

রাজধানীতে জামায়াত ইসলামির ছাত্রসংগঠন  ছাত্রশিবির ও বিএনপির অঙ্গসংগঠন ছাত্রদলের   সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে উদ্বিগ্ন বর্হিবিশ্ব। যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটির বরাতে এ খবর জানা গেছে বার্তাসংস্থা এপিতে।

যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি দেশটির ইনবাউন্ড সিকিউরিটি এজেন্সির বরাতে জানায়, সম্প্রতি কোটা আন্দলন ও শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের দাবি এই দুই আন্দোলনকে ঘিরে ঢাকায় ব্যাপক জঙ্গি ও সন্ত্রাসী তৎপরতা শুরু করেছে ছাত্রদল ও ছাত্রশিবির।



ছাত্রশিবিরকে এর আগে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপিয় ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি দেশ সন্ত্রাসী সংগঠন বলে ঘোষনা দিলেও সম্প্রতি ছাত্রদলের সন্ত্রাসী তৎপরতাতেও উদ্বেগ জানিয়ে সংগঠনটিকে সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকাভুক্ত করার সুপারিশ করেছে সংস্থাটি।

যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটির রিপোর্টে বলা হয়, ছাত্রদল ও ছাত্রশিবির এর আগে বিভিন্ন সময়ে এই অঞ্চলের কুখ্যাত জঙ্গি সংগঠনগুলোর সাথে যোগাযোগ রক্ষা করেছে। সাম্প্রতিককালের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে এর নজির মিলেছে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। চলতি বছরে আসন্ন নির্বাচন লক্ষ্য করে সম্প্রতি ছাত্রদল ও ছাত্রশিবির রাজনৈতিক এজেন্ডার বাইরে বিভিন্ন সামাজিক আন্দোলনকে নিয়ন্ত্রনের মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ ঢাকার বিভিন্ন ইউনিভার্সিটিতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড শুরু করেছে।



এর আগে বাংলাদেশে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ঘটিয়ে সরকার পতনের পরিকল্পনা করে দুটি সংগঠনই এই অঞ্চলের কুখ্যাত জঙ্গি সংগঠনগুলোর সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে বাংলাদেশকে অস্থতিশীল করার তৎপরতা চালায়। জঙ্গিসংগঠনগুলোর নির্দেশনা অনুযায়ীই এই দুটি ছাত্র সংগঠন সম্প্রতি বাংলাদেশের ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাসগুলোতে যে ততপরতা চালাচ্ছে তাতে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকারকে। একই সাথে এই দুই ছাত্রসংগঠনকে সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকাভুক্ত করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগকে।

সম্প্রতি কোটা আন্দোলনকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিবির ও ছাত্রদলের ক্যাডাররা ভিসিকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার বাসভবনে হামলা চালায়। সাধারন ছাত্রের নামে সঙ্গবদ্ধ এসব সহিংসতা করে দেশে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে।