৪ ভাদ্র ১৪২৬, মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ , ৩:০৯ পূর্বাহ্ণ

জঙ্গি মুফতি হান্নানের ভাগ্নি কোটা আন্দোলন নেত্রী নীলা!

বিডিএসনিউজ২৪.কম

প্রকাশিত : ০১:১৪ পিএম, ১১ জুলাই ২০১৮ বুধবার | আপডেট: ০১:১৫ পিএম, ১১ জুলাই ২০১৮ বুধবার

জঙ্গি মুফতি হান্নানের ভাগ্নি কোটা আন্দোলন নেত্রী নীলা!

জঙ্গি মুফতি হান্নানের ভাগ্নি কোটা আন্দোলন নেত্রী নীলা!

কোটা আন্দোলনের সক্রিয় নেত্রী নীলা। গত কয়েকদিন আগে শহীদ মিনারে  কোটা আন্দোলনকারীদের উপর অজ্ঞাত পরিচয়ে হামলা হলে নীলা মিডিয়াতে ঢালাও ভাবে  অভিযোগ করতে থাকে, হামলা ছাত্রলীগ করেছে। পরবর্তীতে জানা যায় হামলায় ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী দেখা গেলেও তারা কোটা আন্দোলনেরই অন্য গ্রুপের সদস্য। তাবে নীলার ঢালাও  ভাবে রাজনৈতিক বক্তব্য দেয়ার পরে জানা যায় নীলা জামাতের ছাত্র সংগঠন ছাত্রী সংস্থার নেত্রী। সব উদ্বেগের ও চাঞ্চল্যকর তথ্য হচ্ছে সে ২১ আগস্ট বোমা হামলার প্রধান আসামি জঙ্গি নেতা মুফতি হান্নানের ভাগ্নি।  

লুৎফুন্নাহার বা নীলা নামে পরিচিত এই কোটা নেত্রী আলোচিত জঙ্গি মুফতি হান্নানের ভাগ্নি। মুফতি হান্নান তার নাম রেখেছিল নীরু। পাঁচ বছর আগে পিতার মৃত্যুর পর থেকে উচ্ছৃঙ্খল জীবন যাত্রা শুরু করে। নিম্নবিত্ত পরিবারের সন্তান নীলা গোপালগঞ্জের নাম ব্যবহার করে যথাসম্ভব সুবিধা আদায় করলেও শিবিরের অনলাইন কর্মী রাশেদ, তারেক ও মশিউর প্রমুখের সাথে পরিচয়ের পর নিষিদ্ধ ঘোষিত ছাত্রী সংস্থার সাথে যুক্ত হয়। ছাত্রী সংস্থার যে পেজ শেয়ার করা নিয়ে রাশেদের ব্যাপারে প্রথম বিতর্ক উঠেছিল তার অন্যতম এডমিন নীলা। সেই সময় ছাত্রী সংস্থার গ্রেফতারকৃত সদস্যদের একজন ছিল লুৎফুন্নাহার নীলা।বেগম সুফিয়া কামাল হলে রগ কাটার গুজব ছড়াতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছিল নীলার নেতৃত্বে ছাত্রী সংস্থার সদস্যরা। সন্দেহজনক কর্মকাণ্ডের কারণে সহপাঠি ছাত্রীরা নীলাকে এড়িয়ে চলতো বলে রাশেদ, নুরু গ্রুপের সাথে সক্রিয়ভাবে যুক্ত হয়। কোটা আন্দোলনে গোপালগঞ্জের জেলা বিএনপির নেতা সিরাজুল ইসলামের কাছ থেকে বিপুল অংকের টাকা গ্রহণ করে নীলা। এছাড়া কোটা আন্দোলনের পোস্টার, ইফতার পার্টি ও ঈদের জামা কেনার জন্য, পরবর্তি আন্দোলন ইত্যাদি উপলক্ষ্যে সাধারণ ছাত্রছাত্রী ছাড়াও বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদদের কাছ থেকে টাকা তুলতে সবচেয়ে অগ্রগামী নীলা।

বেগম সুফিয়া কামাল হলে রগ কাটার গুজব ছড়াতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছিল নীলার নেতৃত্বে ছাত্রী সংস্থার সদস্যরা। সন্দেহজনক কর্মকাণ্ডের কারণে সহপাঠি ছাত্রীরা নীলাকে এড়িয়ে চলতো।

একটি সূত্র জানিয়েছে, নীলার বই প্রকাশের ইচ্ছা বহুদিনের। গার্ডিয়ান প্রকাশনী নামে একটি প্রকাশনী তাকে বই প্রকাশের আশ্বাস দিলেও কোটা আন্দোলন নিস্তেজ হয়ে আসায় তাকে নিজ খরচে বই প্রকাশের কথা বলা হয়। জানা গেছে, এফ ই শরফুজ্জামান নামে ঢাকায় বসবাসরত গোপালগঞ্জের এক ব্যক্তির কাছ থেকে কোটা আন্দোলনের নামে গৃহীত আট লক্ষ টাকা দিয়ে সেই বই প্রকাশ করা হবে। আর লেখক হিসেবে আলোচিত হওয়ার জন্যই বর্তমানে হামলার ঘটনা সাজানো হয়েছে।

আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে কথা বললে তারা জানায়, নীলার মুফতি হান্নানের ভাগ্নি ও তার জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার প্রমান পাওয়া গেছে ।