৯ আশ্বিন ১৪২৫, সোমবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৪:০৪ অপরাহ্ণ

শ্রীদেবীর শুরু থেকে শেষ

বিডিএসনিউজ২৪.কম

প্রকাশিত : ০৩:৩৭ পিএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ সোমবার

শ্রীদেবীর শুরু থেকে শেষ

শ্রীদেবীর শুরু থেকে শেষ

তাকে বলা হয় বলিউডের প্রথম নারী সুপারস্টার। নায়কদের জৌলুসের পাশাপাশি শ্রীদেবী নামটিও ভিন্ন আবেদন তৈরি করতো দর্শকদের মনে। এই নায়িকা একাই যথেষ্ট ছিলেন বক্স অফিস কাঁপিয়ে দিতে।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে দুবাইতে মারা যান শ্রীদেবী। ৫৪ বছর বয়সের জীবনে ৪৭ বছরই জড়িয়ে ছিলেন অভিনয়ের সাথে। অভিনেত্রী হয়ে কাজ করেছেন প্রায় ৩০০টি চলচ্চিত্রে।

১৯৬৯ সাল, তামিলে নির্মিত হচ্ছে চলচ্চিত্র ‘থুনাইভান’। পরিচালক ও নৃত্যপরিচালক কিছুটা চিন্তিত। কারণ, কিছুটা নাচের, কিছুটা এক্সপ্রেশনের একটি দৃশ্যে অভিনয় করবে মাত্র সাত বছর বয়সী একজন শিশু অভিনয়শিল্পী। পরিচালক ও নৃত্যপরিচালক অনেকটা দ্বিধা-দ্বন্দ্ব নিয়ে শুরু করলেন শুটিং। যখন রেকর্ডিং শুরু হলো, দুঃশ্চিন্তা উড়ে গেলো দুজনেরই। কারন ক্যামেরার সামনে সাত বছর বয়সী মেয়েটি ছিলেন শ্রীদেবী। শিল্পী হিসেবে প্রথম সিনেমা তার।

 

শ্রী আম্মা ইয়াঙ্গার আয়পান নামের সেই মেয়েটি সবার কাছে পরিচিতি পায় শ্রীদেবী নামে। বলিউডে তার অভিষেক মাত্র ১৩ বছর বয়সে, ১৯৭৫ সালে ‘জুলি’ সিনেমার মাধ্যমে। এখানেও শ্রীদেবী ছিলেন শিশুশিল্পী।

সেই ১৩ বছর বয়সেই নায়িকা হয়ে আত্মপ্রকাশ করেন শ্রীদেবী, তামিল সিনেমায়। তখন থেকেই তামিল-তেলেগু সিনেমায় নিয়মিত এই অভিনেত্রী। নায়িকা হয়ে শ্রীদেবীর বলিউডে আসেন ১৯৭৯ সালে, ‘সোলভা সাওয়ান’ সিনেমায়।

 

শ্রীদেবী সবার নজর কাড়েন ‘হিম্মতওয়ালা’ সিনেমায়। ১৯৮৩ সালে মুক্তি পায় ছবিটি। এরপর শুধুই সাফল্য। ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত কিছু সময় বিরতি দিয়ে দিয়ে অভিনয় করেছেন বিভিন্ন সিনেমায়। উল্লেখযোগ্য ছবির মধ্যে আছে ‘মাওয়ালি’, ‘তোফা’, ‘মি. ইন্ডিয়া’, ‘চাঁদনি’, ‘সাদমা’, ‘নাগিন’।

এই সময়ের মধ্যে তার অভিনয়, নাচ, এক্সপ্রেশন, ফ্যাশনে মুগ্ধ হয়ে  দর্শকরাই তাকে করে তোলে সুপারস্টার। শ্রীদেবীর আমলে তিনি ছিলেন সবচেয়ে বেশি আয়ের নায়িকা।

 

এরপর ১৫ বছরের বিরতি। এর মধ্যে তিনি অল্প পরিমাণে ছোট পর্দায় কাজ করেছেন, পালন করেছেন টিভি অনুষ্ঠানের বিচারকের দায়িত্ব। সুপারস্টার শ্রীদেবী বলিউডে ফেরেন ২০১২ সালে ‘ইংলিশ ভিংলিশ’ সিনেমার মাধ্যমে। এবার আর নায়িকা বা সুপারস্টার নন, একজন সাধারণ অভিনয়শিল্পী হয়েই ফিরলেন তিনি। কিন্তু গল্পের সঙ্গে তার অভিনয়ের দম্ভে ছবিটি হয়ে উঠলো আসাধারণ। বক্স অফিসে ছবিটি আয় করে ৭৮০ মিলিয়ন রুপি। ২০১৩ সালে ‘পদ্মশ্রী’ উপাধিতে ভূষিত হন তিনি।

 

দর্শক, সমালোচকদের ইতিবাচক সাড়া পেয়ে শ্রীদেবী আবারো নিয়মিত হতে চাইছিলেন অভিনয়ে। সে কারনেই ২০১৭ সালে আরও একটি ছবি করেন তিনি, ‘মম’। এই ছবিতেও তার অভিনয় হয় প্রশংসিত।

 

সবকিছু মিলিয়ে শ্রীদেবী যখন নিজের চেনা বৃত্তে নিয়মিত হওয়ায় মনযোগী হচ্ছিলেন, দর্শকরাও যখন প্রস্তুত হচ্ছিলেন চেনা শ্রীদেবীকে ফিরে পাবার আশায়, তখনই আসলো সবচেয়ে বড় দুঃসংবাদ। অনেকটা আচমকাই পাওয়া গেলো তার মৃত্যুর সংবাদ, মাত্র ৫৪ বছর বয়সে। দুবাইয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বলিউড কাঁপানো এই অভিনেত্রী। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন স্বামী বনি কাপুর ও ছোট মেয়ে খুশি কাপুর। বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দুবাইয়ে গিয়েছিলেন শ্রীদেবী।